You Are Here: Home » featured » আরাকানে মিয়ানমারের রক্ত স্নান বন্ধ করতে হবে -পীর সাহেব চরমোনাই

আরাকানে মিয়ানমারের রক্ত স্নান বন্ধ করতে হবে -পীর সাহেব চরমোনাই

আরাকানে মিয়ানমারের রক্ত স্নান বন্ধ করতে হবে -পীর সাহেব চরমোনাই

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই আরাকানে মিয়ানমারের বর্বরোচিত আক্রমনে রোহিঙ্গা মুসলমানদের নৃশংস হতাকান্ডের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ করে বলেছেন, বিশ্ব জনমত অগ্রাহ্য করে অহিংস নীতিতে বিশ্বাসী মিয়ারমার আরাকানে রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর নগ্ন ও সর্বাত্মক হামলায় কোনো বিবেকবান মানুষ বিচলিত না হয়ে পারে না। তিনি বলেন, পৃথিবীর তাবৎ মানবতাবাদী মানুষের মাতমের দীর্ঘশ্বাস, আত্মার আহাজারি, সমর্থনপুষ্ট নৈতিক সমর্থনের কেন্দ্রবিন্দু রোহিঙ্গার জনগণ। রোহিঙ্গাদের এই আহাজারি প্রতিটি মুক্তিকামী মানুষের। সর্বোপরি এ আর্তনাদ ন্যায়ের পথে সমগ্র উম্মাহর আর্তনাদ, মুসলিম মিল্লাত ও বিশে^র শান্তিকামী মানুষের আর্তনাদ। রোহিঙ্গারা ইতিহাসের এক জ্বলন্ত ট্রাজেডী। নাগরিকত্বের অধিকার আদায়ের লাগাতার ইতিহাস সমৃদ্ধ এক নিগৃহিত ও নিপীড়িত জাতির নাম রোহিঙ্গা।

সোমবার (৫ ডিসেম্বর) বিকেলে পুরানা পল্টনস্থ আইএবি মিলনায়তনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর এক জরুরী সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ-এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ছিলেন নায়েবে আমীর মুফতি সৈয়দ ফয়জুল করীম, যুগ্ম মহাসচিব-অধ্যাপক এটিএম হেমায়েত উদ্দিন, অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান ও মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, সহকারী মহাসচিব মাওলানা আবদুল কাদের ও আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল আলম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক কে এম আতিকুর রহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ুম, সহ-প্রচার সম্পাদক মাওলানা নেছার উদ্দিন, সহ-প্রশিক্ষণ সম্পাদক মুফতি হেমায়েতুল্লাহ, দফতর সম্পাদক মাওলানা লোকমান হোসাইন জাফরী, অর্থ সম্পাদক আলহাজ্ব হারুনুর রশীদ, ঢাকা দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, ঢাকা উত্তর অধ্যক্ষ শেখ ফজলে বারী মাসউদ, মাওলানা আতাউর রহমান আরেফী, প্রিন্সিপাল মাওলানা কেফায়েতুল্লাহ কাশফী, আলহাজ্ব আব্দুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল ওয়াদুদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম, এ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান শেখ, এডভোকেট একেএম এরফান খান প্রমুখ।

সভায় লংমার্চসহ ঘোষিত কর্মসূচি বাস্তবায়নে বিশদ আলোচনা করা হয়।

পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, মিয়ানমারের রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে শুধু উদ্বেগ প্রকাশ যখেষ্ট নয়। আদমশুমারিতে রোহিঙ্গাদের নাম অন্তর্ভুক্ত করে তাদের নাগরিকত্ব বহাল, শিক্ষা-সংস্কৃতিসহ মিয়ানমার সরকারের নিপীড়ন থেকে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে রক্ষার যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। এব্যাপারে এগিয়ে আসতে জাতিসংঘ, ওআইসি, ন্যাম, আসিয়ান ও সার্কসহ সকল আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক সংস্থা ও সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান। মুসলমানদের বহিরাগত হিসেবে গণ্য করে তাদেরকে শুধু দ্বিতীয় শ্রেণীর নাগরিকে পরিণত করেনি, বরং মুসলমানদের ওপর অত্যাচার-নির্যাাতন বৃদ্ধি করে, যাতে মুসলমানরা সেদেশ ত্যাগ করতে বাধ্য হয়, যা আজো অব্যাহত আছে।

পীর সাহেব চরমোনাই ৯ ডিসেম্বর জেলায় জেলায় বিক্ষোভ, ১৬ ডিসেম্বর দেশব্যাপী দোয়া ও কুনুতে নাজেলা, ১৮ ডিসেম্বর মিয়ানমার অভিমুখে লংমার্চ সফলে দলমত নির্বিশেষে সকল ধর্মপ্রাণ মানুষকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

Comments

comments

About The Author

Number of Entries : 673

কপিরাইট © ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ২০১১ সকল স্বত্ব সংরক্ষিত

Scroll to top