You Are Here: Home » featured » কুরআন নাজিলের এ মাসে মানবতার মুক্তির লক্ষ্যে কুরআনী শাসন প্রতিষ্ঠায় ছাত্রসমাজকে এগিয়ে আসতে হবে -পীর সাহেব চরমোনাই

কুরআন নাজিলের এ মাসে মানবতার মুক্তির লক্ষ্যে কুরআনী শাসন প্রতিষ্ঠায় ছাত্রসমাজকে এগিয়ে আসতে হবে -পীর সাহেব চরমোনাই

কুরআন নাজিলের এ মাসে মানবতার মুক্তির লক্ষ্যে কুরআনী শাসন প্রতিষ্ঠায় ছাত্রসমাজকে এগিয়ে আসতে হবে -পীর সাহেব চরমোনাই

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর সংগ্রামী আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম (পীর সাহেব চরমোনাই) বলেছেন, ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন সাহাবাদের অনুসরণকারী একটি সংগঠন। সাহাবায়ে কেরাম এ রমজান মাসেই বদর যুদ্ধে তাগুতি শক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করেছিলেন। তাই সাহাবায়ে কেরামের নমুনায় ঈমানী বলে বলীয়ান হয়ে সকল তাগুতের মোকাবেলা করে কুরআন নাজিলের এ মাসে মানবতার মুক্তির লক্ষ্যে কুরআনী শাসন প্রতিষ্ঠায় ছাত্রসমাজকে এগিয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার সাধারণ মানুষের জান-মাল, ইজ্জত-আবরুর নিরাপত্তা দিতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। শুধু তাই নয়, পবিত্র মাহে রমজানেও দ্রব্য মূল্যের ঊর্ধ্বগতি রোধ করতে সক্ষম হয়নি। সরকার সিন্ডিকেটের মাধ্যমে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির ক্ষেত্রে পরোক্ষভাবে সহযোগিতা করে যাচ্ছে। এ সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে ইসলামী হুকুমতের কোনো বিকল্প নেই।

তিনি আরো বলেন, আজ ফিলিস্তিনে আমার মুসলমান ভাই-বোনদের কী অবস্থা? আপনারা জানেন, গত সাত দিনে গাজায় প্রায় ১০০০টি লক্ষ্যবস্তুতে নির্বিচারে বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী। এতে নারী ও শিশুসহ অন্তত ২০০জন শহীদ হয়েছে। আহত হয়েছে হাজার হাজার লোক, যাদের অধিকাংশই নারী ও শিশু। ফিলিস্তিনে আজ মানবতা ভূলুণ্ঠিত। সন্তানহারা মায়ের বুকফাটা আর্তনাদ ফিলিস্তিনের আকাশ বাতাস ভারি করে তুলছে। কিন্তু আজ লজ্জাজনকভাবে বলতে হয় যে, অসহায় ফিলিস্তিনিদের রক্ষা করতে বিশ্ববাসী এখন পর্যন্ত নীরব ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। নিচ্ছে না কোনো কার্যকর পদক্ষেপ। তিনি ফিলিস্তিনে রোজাদার মুসলমানদের ওপর ইসরাইলের বিমান হামলায় নির্মমভাবে হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। অবিলম্বে অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের এ হত্যাকাণ্ড বন্ধ করতে বিশ্বনেতৃবৃন্দকে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে আহ্বান জানান।

১৫ জুলাই মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় হোটেল ইম্পেরিয়ালে ইশা ছাত্র আন্দোলন-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মাদ আরিফুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মাদ নুরুল ইসলাম আল-আমীনের সঞ্চালনায় “আদর্শ সমাজ বিনির্মাণে সিয়ামের ভূমিকা” শীর্ষক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর কেন্দ্রীয় ছাত্র ও যুব বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ এসহাক মোহাম্মাদ আবুল খায়ের, ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মু. আবদুর রহমান গিলমান, জয়েন্ট সেক্রেটারি জেনারেল, শেখ মুহাম্মদ নুরুন্নবী, শেখ ফজলুল করীম মারুফ, মুহা. রুহুল আমীন, মুহাম্মদ আজিজুল হক, মুহাম্মদ এমদাদুল্লাহ ফাহাদ, মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, মুহাম্মদ বিলাল হোসাইন খান, মুহাম্মদ মাহবুব আলম, মুহাম্মদ ইলিয়াস প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য যে, একই দিন বিকাল ৩টা থেকে এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষায় জিপিএ ৫ প্রাপ্ত কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেন, বাংলাদেশে আজ শিক্ষিত ও জ্ঞানী মানুষের অভাব না থাকলেও নৈতিকতাসম্পন্ন শিক্ষিত লোকের বড়ই অভাব। মেধাবী ছাত্ররা হলো দেশে ও জাতির ভবিষ্যত কর্ণধার। তাই এদেরকে ইসলামী মূল্যবোধসম্পন্ন শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে।

Comments

comments

About The Author

কপিরাইট © ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ২০১১ সকল স্বত্ব সংরক্ষিত

Scroll to top