You Are Here: Home » featured » মুসলমানরা ঐক্যবদ্ধ হলে ইসলামের দুশমনরা এক মুহুর্তও টিকে থাকতে পারবে না -পীর সাহেব চরমোনাই

মুসলমানরা ঐক্যবদ্ধ হলে ইসলামের দুশমনরা এক মুহুর্তও টিকে থাকতে পারবে না -পীর সাহেব চরমোনাই

মুসলমানরা ঐক্যবদ্ধ হলে ইসলামের দুশমনরা এক মুহুর্তও টিকে থাকতে পারবে না -পীর সাহেব চরমোনাই

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম (পীর সাহেব চরমোনাই) বলেছেন, বিশ্বব্যাপী ইসলাম ও মুসলমানদের নিশ্চিহ্ন করতে আল-কুফরু মিল্লাতুন ওয়াহিদাহ হয়ে মাঠে নেমেছে। মুসলমানদের ঐক্যবদ্ধভাবে তাদের সেই চক্রান্তকে নস্যাৎ করে দিতে হবে। বাংলাদেশও সেই চক্রান্ত থেকে খালি নয়। ক্ষমতাসীনদের কাঁদে ভর করে বাংলাদেশ থেকেও ইসলাম বিদায় করতে ষড়যন্ত্র চলছে। “জায়নবাদি ইসরাইল মুসলমান নিধনে ভয়াবহ চক্রান্ত অব্যাহত রেখেছে। সেইসাথে বাংলাদেশের স্বঘোষিত নাস্তিক লতিফ সিদ্দিকীরা তাল দিচ্ছে।

তিনি বলেন, মুসলমানরা যতদিন ইসলামের উপর মজবুত ছিল, ততদিন ইসলামের উপর আঘাত করতে কোনো শক্তিই সাহস পায়নি। মুসলমানরা যখন নিজেদের স্বকীয়তা হারিয়ে অমুসলিমদের রীতি-নীতি গ্রহণ করতে শুরু করেছে তখন থেকেই ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে সকল কুফরী শক্তি ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ শুরু করেছে। এমতাবস্থায় আল্লাহর নির্দেশ “আল্লাহর রুজ্জুকে আঁকড়ে ধরে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।” মুসলমানরা ঐক্যবদ্ধ হলে ইসরাইলসহ বাংলাদেশেও যারা আসন গেড়ে বসেছে তারা এক মুহুর্তও টিকে থাকতে পারবে না। মুসলমানদের ভিতর ক্ষমতার মোহ ডুকিয়ে দিয়ে তাদের লাইনচ্যুত করেছে। যারা কারণে ফরজ বিধান পর্দার খেলাফ করতেও কতেক উলামা হযরত দ্বিধা করেন না। এভাবে ইসলামের আদর্শ জলাঞ্জলী দিয়ে কখনোই ইসলামের উপকার করা যাবে না। ইসলামকে বিজয়ী করার সংগ্রামে অবতীর্ণ হতে যেয়ে তাগুতি শক্তির সহযোগি হওয়া যাবে না।

তিনি বলেন, ইসলাম আসছে বিজয়ের জন্য। মুসলমানরা ইসলাম বুঝতে পারেনি, ইসলামের পক্ষে নিরঙ্কুশ অবদান রাখতে পারেনি। ইসলামের জন্য যারাই চেষ্টা করছে আবার তারাই বাতিলের সহযোগি ভূমিকা পালন করেছে। বাতিলের সাথে আপোস করে কিংবা বন্ধু বানিয়ে ইসলাম হবে না। তিনি সকলকে ইসলামের জন্য সার্বিক প্রস্তুতি গ্রহণ করার আহ্বান জানান।

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) সকালে বরিশালের চরমোনাই মাদরাসা ময়দানে ১৫ দিন ব্যাপী বিশেষ তালিম তারবিয়াতের ১৪তম দিবসের আলোচনায় পীর সাহেব চরমোনাই এসব কথা বলেন। এতে পীর সাহেব চরমোনাই ছাড়াও নায়েবে আমীরুল মুজাহিদীন প্রিন্সিপাল মাওলানা মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী, আল্লামা আইয়ূব আলী আনসারী, মাওলানা মুজিবুর রহমান কালিশ্বরী, মাওলানা জিয়াউল করীম, মুফতী এছহাক মু. আবুল খায়ের চেয়ারম্যানসহ চরমোনাই’র খলিফাগণ আলোচনা করেন।

Comments

comments

About The Author

Number of Entries : 673

কপিরাইট © ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ২০১১ সকল স্বত্ব সংরক্ষিত

Scroll to top