You Are Here: Home » featured » লালখান বাজার মাদরাসা বন্ধের মাধ্যমে জয়রা মাদরাসা ছাত্র কমানোর ষড়যন্ত্র শুরু করেছে -মুফতী ফয়জুল করীম

লালখান বাজার মাদরাসা বন্ধের মাধ্যমে জয়রা মাদরাসা ছাত্র কমানোর ষড়যন্ত্র শুরু করেছে -মুফতী ফয়জুল করীম

লালখান বাজার মাদরাসা বন্ধের মাধ্যমে জয়রা মাদরাসা ছাত্র কমানোর ষড়যন্ত্র শুরু করেছে -মুফতী ফয়জুল করীম

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর সিনিয়র প্রেসিডিয়াম সদস্য মুফতী সৈয়দ মু. ফয়জুল করীম বলেছেন, ভোট ছিনতাইকারী আওয়ামী সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনই সুষ্ঠু হতে পারে না। চরম ক্ষমতালিপ্সু আওয়ামী লীগ ১৫ দিন মেয়াদি বরগুনা-২ উপনির্বাচনে ভোট ছিনতাইয়ের নিকৃষ্ট নজির স্থাপন করেছে। যারা সামান্য ক’দিনের ক্ষমতার জন্য এমন নিকৃষ্ট কাজ করতে পারে তাদের অধীনে জাতীয় নির্বাচন হলে সেখানে ভোট ডাকাতির ঘটনা ঘটবে। অতএব অবিলম্বে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার ব্যবস্থার অধীনেই নির্বাচন দিতে হবে। গতকাল (শুক্রবার) ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ চট্টগ্রাম মহানগর আয়োজিত নগরীর বাদামতলী মোড়ে অনুষ্ঠিত এক প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ মিছিলপূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বরগুনা-২ উপনির্বাচনে ভোট কারচুপির অভিযোগ করে তিনি আরো বলেন, নির্বাচনের সময় অন্তত ২৩টি কেন্দ্র থেকে ইসলামী আন্দোলনের এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে, জাল ভোট দেওয়া হয়েছে। জাতীয় নির্বাচনেও এই ধরনের ভোট ডাকাতি করে সরকার বাকশাল কায়েম করতে চায়। দেশের তওহীদি জনতা যা কখনো হতে দেবে না ইনশাআল্লাহ।

মুফতী ফয়জুল করীম চট্টগ্রাম শহরের ঐতিহ্যবাহী দীনী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান লালখান বাজার জামিয়াতুল উলুম আল-ইসলামিয়া বন্ধ করে দেওয়ার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, কথিত বোমা বিষ্ফোরণের অজুহাতে লালখান বাজার মাদরাসা বন্ধ করে দেওয়া হলো, কিন্তু যেসব কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রকাশ্যে সশস্ত্র মহড়া হয়, বোমা-অস্ত্রের কারখানা থাকে সেসব কেন সরকার বন্ধ করে না? আজকে লালখান বাজার মাদরাসায় ধর্মীয় শিক্ষা বন্ধ রয়েছে। এর মধ্য দিয়ে জয়েরা মাদরাসা ছাত্র কমানোর ষড়যন্ত্রের বাস্তবায়ন শুরু করেছে। তিনি তদন্তের আগে মাদরাসা কর্তৃপক্ষ, ছাত্র-শিক্ষক ও ওলামায়ে কেরামকে গ্রেফতার, হয়রানি ও তল্লাশির নামে মাদরাসায় মাদরাসায় সরকারি বাহিনীর হানা দিয়ে মারাসাগুলোকে জঙ্গিবাদের আস্তানা প্রমাণের সরকারি হিনপ্রচেষ্টার তীব্র নিন্দা এবং তিনি অবিলম্বে ইশা ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতিসহ গ্রেফতারকৃত ইসলামী নেতৃবৃন্দকে মুক্তি দেওয়ার আহ্বান জানান। নতুবা সরকারকে করুণ পরিণতির হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

বরগুনা-০২ উপনির্বাচনে কারচুপি,ইশা ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতিসহ ৬ কেন্দ্রীয় নেতাকে গ্রেফতার ও চট্টগ্রামে মাদরাসা বন্ধের প্রতিবাদে, নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্ববধায়ক সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচনের দাবিতে এবং পীর সাহেব চরমোনাই ঘোষিত ৫ দফা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ চট্টগ্রাম মহানগরের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ আবুল কাশেম মাতব্বরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সহ-সভাপতি নুরুল ইসলাম বিএসসি, অধ্যাপক মাওলানা রফিকুল আলম, মাওলানা জসিম উদ্দীন ফারুকী, সেক্রেটারি মুহাম্মদ আল-ইকবাল, হেফাজত নেতা মাওলানা হাফেজ মনসুরুল হক জিহাদী, এইচএম মুসলেহ উদ্দীন, ইসলামী আন্দোলনের সংসদ সদস্যপ্রার্থী চট্টগ্রাম-৩ আসনের আলহাজ আলী আজগর চৌধুরী, চট্টগ্রাম-৯ আসনে শাহজাহান ভূঁইয়া, চট্টগ্রাম-১০ আসনে মুহাম্মদ লোকমান হোসেন সওদাগর, চট্টগ্রাম-৪ আসনে হাফেজ মাওলানা আনোয়ার হোসাইন, শ্রমিক নেতা আলহাজ ওয়ায়েজ হোসাইন ভূঁইয়া, মাস্টার আবদুল মতিন মজুমদার, ছাত্রনেতা ইঞ্জিনিয়ার মুস্তাক আহমদ প্রমুখ।

Comments

comments

About The Author

Leave a Comment

কপিরাইট © ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ২০১১ সকল স্বত্ব সংরক্ষিত

Scroll to top