You Are Here: Home » featured » হাসিনা ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে কটুক্তি করলে শাস্তির আইন থাকলে আল্লাহ ও রাসূল (সা.)-এর কটুক্তিকারীদের কেনো শাস্তির আইন থাকবে না -পীর সাহেব চরমোনাই

হাসিনা ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে কটুক্তি করলে শাস্তির আইন থাকলে আল্লাহ ও রাসূল (সা.)-এর কটুক্তিকারীদের কেনো শাস্তির আইন থাকবে না -পীর সাহেব চরমোনাই

হাসিনা ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে কটুক্তি করলে শাস্তির আইন থাকলে আল্লাহ ও রাসূল (সা.)-এর কটুক্তিকারীদের কেনো শাস্তির আইন থাকবে না -পীর সাহেব চরমোনাই

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম (পীর সাহেব চরমোনাই) বলেছেন, শেখ হাসিনা ও তার পরিবারকে নিয়ে কোনো কটুক্তি করলে শাস্তির বিধান পাশ হয়। অথচ আল্লাহ ও রাসূল (সা.)-এর বিরুদ্ধে, হজ্বের বিরুদ্ধে কটুক্তির শাস্তির আইন হবে না, তাহলে নেতানেত্রীদের চেয়েও আল্লাহ ও আমাদের প্রাণের স্পন্দন রাসূল সা.-এর মর্যাদা কম? নাউযুবিল্লাহ। এ ধরণের ফেরাউনী চিন্তা বাদ দিয়ে ইসলামের মুহাব্বতে কাজ করুন, তাহলে আপনাদেরই মঙ্গল হবে।

সোমবার রাজধানীর শ্যামপুর রাণী রি-রোলিং স্টিল মিল ময়দানে অনুষ্ঠিত বিশাল ইসলামী সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পীর সাহেব চরমোনাই একথা বলেন।

তিনি বলেন, ইসলাম, ধর্ম ও রাষ্ট্রদ্রোহীদের শাস্তির আইন প্রণয়নের দাবী সর্বস্তরের মানুষের প্রাণের দাবীতে পরিণত হয়েছে। ৯২ ভাগ মুসলমানের দেশে আল্লাহ, রাসূল (সা.) ও ইসলাম-কে নিয়ে কটুক্তি করবে আর তার শাস্তির আইন পাশ হবে না, তা মেনে নেয়া যায় না।

তিনি আরো বলেন, নাস্তিক-মুরতাদদের আস্ফালন থামাতে হলে ধর্মদ্রোহীদের মৃত্যুদণ্ডের আইন পাশ করতে হবে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই আইন প্রণীত আছে। স্বঘোষিত নাস্তিকদের সর্বোচ্চ শাস্তি না দিলে দেশময় তীব্র আন্দোলন গড়ে উঠবে, ইনশাআল্লাহ।

তিনি আরো বলেন, জঙ্গিবাদের ধোয়া তুলে ইসলামপন্থিদের নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করলে কারোর জন্যই মঙ্গল হবে না। বিভিন্ন স্থানে ওয়াজ মাহফিলের উপর নিষেধাজ্ঞা করে ইসলামী জনতাকে সরকারের মুখোমুখি দাড় করানোর চেষ্টা করলে কারো জন্যই শুভ হবে না বলে তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

তিনি আরো বলেন, এই দেশ পীর-আউলিয়ার দেশ, ঈমানদার জনতার দেশ। এই দেশে নাস্তিক, মুরতাদ ও আল্লাহদ্রোহী শক্তির জায়গা নেই। পীর সাহেব চরমোনাই তেল-গ্যাসের আকাশচুম্বি মূল্যবৃদ্ধির প্রস্তাবে বিস্ময় প্রকাশ করে এই প্রস্তাব বাতিল করার আহ্বান জানান।

ইসলামী সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন পীর সাহেব চরমোনাই রহ.-এর সুযোগ্য খলিফা অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ। সম্মেলনে স্থানীয় উলামায়ে কেরাম, মসজিদের ইমামগণ উপস্থিত থেকে আলোচনায় অংশ নেন।

Comments

comments

About The Author

কপিরাইট © ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ২০১১ সকল স্বত্ব সংরক্ষিত

Scroll to top