৫৫/বি (৩য় তলা), পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৯৫৬৭১৩০, ফ্যাক্স : ০২-৭১৬১০৮০

বাজেট প্রস্তাব এর আগে বাজেট বাস্তবায়নকারীদের বৈধতা, দক্ষতা ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে হবে

বাজেট হলো জনগণের দেওয়ার টাকা খরচের পরিকল্পনা। সেই পরিকল্পনা দেশের আগে কারা জনতার অর্থ ব্যয় করেছে, তাদের সেই আইনগত ও নৈতিক অধিকার আছে কিনা সে প্রশ্ন জরুরী। বিগত জাতীয় নির্বাচনে ধরণ ও চরিত্র বিবেচনায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনে করে বর্তমান সরকারের বাজেট প্রস্তাব করা ও তা বাস্তবায়ন করার নৈতিক অধিকার নাই। একই সাথে সরকারি অর্থ ব্যয়ে স্বচ্ছতা ও দক্ষতা ঘাটতি বাজেটকে আদতে বার্ষিক দুর্নীতির খতিয়ানে পরিণত।

আজ ২ জুন ২০২১ বুধবার ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ দলের পক্ষ থেকে ভার্চুয়াল এর মাধ্যমে ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন করতে গিয়ে উপর্যুক্ত মন্তব্য করেন।

সংগঠনের মহাসচিব বাজেটে ঋণ নির্ভরতা কমিয়ে আনা, সুদ পদ্ধতির বদনে পদ্ধতি অনুসরণ, জনপ্রশাসনের ব্যয় কমানোর প্রস্তাব করেন। স্বাস্থ্য খাতকে প্রাধান্য দেওয়ার দাবি করার সাথে সাথে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের আমূল সংস্কারের প্রস্তাব করা হয়। শিক্ষা ও সামাজিক সুরক্ষা খাতের সাথে সাথে অন্য খারাপ জুড়ে দেওয়া সমালোচনা করা হয়। বাজেট প্রস্তাবনায় শিল্পখাতের বিকাশের লক্ষ্যে গ্রামীণ অর্থনীতিতে অর্থের প্রবাহ বাড়ানোর দাবি জানানো হয়। কৃষি খাতের জন্য সুনির্দিষ্ট চৌদ্দটি প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়। বাজেট প্রস্তাবনায় এডিপি বাস্তবায়নের হার নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেন অধ্যক্ষ ইউনুছ আহমাদ।

ইসলামী আন্দোলনের বাজেট প্রস্তাবনার শেষে আশা প্রকাশ করা হয় যে, সরকার জনগণের আশা-আকাঙ্খার প্রতিফলন ঘটাতে বাজেট উত্থাপন পিছিয়ে দিয়ে হলেও নতুন করে জনমত ভিত্তিক বাজেট উত্থাপন করবে। অন্যথায় জনগণ বাজেটকে প্রত্যাখ্যান করবে বলে হুঁশিয়ারি করা হয়।

শেয়ার করুন

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook

অন্যান্য সমাজ সংস্কার ও অর্থনৈতিক মুক্তি, জাতীয় কর্মসূচি, বাজেট

Scroll to Top

সদস্য ফরম

নিচের ফরমটি পূরণ করে প্রাথমিক সদস্য হোন

small_c_popup.png

প্রশ্ন করার জন্য নিচের ফরমটি পূরণ করে পাঠিয়ে দিন